• মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ১০:৫৯ অপরাহ্ন

আ.লীগ-বিএনপির মধ্যে লুটপাটে কোনো পার্থক্য নেই

Reporter Name / ১২ Time View
Update : সোমবার, ২০ মে, ২০২৪

দুর্নীতি, লুটপাট ও অর্থ পাচারে আওয়ামী লীগ-বিএনপির মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই। যারা ক্ষমতার রাজনীতি ব্যবহার করতে পারছে, তারাই সম্পদের মালিক হচ্ছে। ২৩ দফার ভিত্তিতে গঠিত ১৪ দলীয় জোটে ২৩ দফার বিন্দুমাত্র নেই। অনেকে ক্ষমতার রঙিন চশমা পরে বামপন্থি দলগুলোকে অবহেলা ও অবজ্ঞা করতে শুরু করেছে।

রোববার ওয়ার্কার্স পার্টির কার্যালয়ের সামনে ‘মুক্তিযুদ্ধ, সাম্রাজ্যবাদ, সাম্প্রদায়িকতা ও সাংস্কৃতিক আন্দোলন’ শীর্ষক আলোচনাসভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। তারা বলেন, মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির হাতে ক্ষমতা থাকলেও আজ সমাজটা চলে গেছে সাম্প্রদায়িক শক্তির হাতে। রাষ্ট্র ধীরে ধীরে তাদের দখলদারির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। সাম্প্রদায়িকতা, অর্থনৈতিক নৈরাজ্য, দুর্নীতি ও ঋণখেলাপি প্রতিনিয়ত সবাইকে উদ্বিগ্ন করে তুলছে।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেননের ৮১তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে রাশেদ খান মেনন বলেন, সাম্রাজ্যবাদ, সাম্প্রদায়িকতা, অর্থনৈতিক নৈরাজ্য, ঋণখেলাপি ও দুর্নীতিকে প্রতিরোধ করতে হলে দেশবাসীকে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসতে হবে। এজন্য শুধু সরকারের মুখাপেক্ষী হয়ে বসে থাকলে হবে না। তরুণ প্রজন্মকেও অগ্রগামী ভূমিকা রাখতে হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি ইঙ্গিত করে মেনন বলেন, যখন তারা ব্যর্থ হয়েছে বাংলাদেশকে কোয়াডে নিয়ে যাওয়ার জন্য, তখন তারা বাংলাদেশের মানবাধিকার নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। প্রশ্ন তুলেছে গণতন্ত্র নিয়ে। প্রশ্ন নিয়ে এসেছে নির্বাচনের নিরপেক্ষতা নিয়ে। তাদের একমাত্র লক্ষ্য ছিল এ দেশের নির্বাচিত সরকারকে হটিয়ে তাঁবেদার সরকার প্রতিষ্ঠা করা।

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেন, বাংলাদেশে এ মুহূর্তে কিছু ত্রুটি ঘাটতিসহ মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তি দেশ চালাচ্ছে। সেই মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিকে যে কোনো মূল্যে উত্খাতের জন্য রাজাকার পক্ষ জোর প্রচষ্টো চালাচ্ছে।

এ প্রচষ্টোর বিরুদ্ধে বামপন্থিরা কীভাবে ভূমিকা রাখবে সেটি যদি নিষ্পত্তি করতে না পারি, তাহলে একদিন সাম্রাজ্যবাদের লেজুড় রাজাকার পক্ষকে ক্ষমতায় দেখতে হবে।
২৩ দফার ভিত্তিতে গঠিত ১৪ দলীয় জোটে ২৩ দফার বিন্দুমাত্র নেই উলে্লখ করে সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া বলেন, আমরা স্বপ্ন দেখেছিলাম নতুন রাজনৈতিক ধারা সৃষ্টি হবে। বিএনপি-জামায়াত লুটপাট করতে যে ভুলগুলো করেছিল, মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের সরকার ক্ষমতায় এলে তা থেকে আমরা মুক্তি পাব।

অগণতানি্ত্রক ব্যবস্থা থেকে মুক্তি পাব। কিন্তু আজ আমাদের সেই স্বপ্ন ভেঙে গেছে। ১৫ বছর আগে বিএনপি-জামায়াতের বিরুদ্ধে যে স্বপ্ন নিয়ে আন্দোলন-সংগ্রাম করেছিলাম, সেই আন্দোলন নিষ্ফল হয়ে গেছে। আজ ১৪ দলীয় জোটের ২৩ দফার বিন্দুমাত্র নেই।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, আমরা যারা ঐক্যবদ্ধ জোট ও সংগ্রামের মধ্যে ছিলাম, যে জোটের রাজনীতিকে এগিয়ে নিতে আমাদের দলের নেতাকর্মীরা জীবন দিয়েছিল; সেই রাজনীতি থেকে আমাদের অনেক দূর সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। এখন রাজনীতিতে লুটপাট, দুর্নীতি, অর্থ পাচারের নতুন ধারা চলছে। বাংলাদেশ থেকে অনেক সম্পদ বিদেশে পাচার হয়ে যাচ্ছে। ক্ষমতাসীনদের যারা রাজনীতিকে ব্যবহার করতে পারছে, তারাই সেই সম্পদের মালিক হচ্ছে। এ অবস্থা পরিবর্তনের জন্য আমাদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন আনিসুর রহমান মলি্লক, অ্যাডভোকেট এসএমএ সবুর, বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহমুদুল হাসান মানিক, ডা মুশতাক হোসেন, গোলাম কুদ্দুস প্রমুখ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category