• বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৬:২৭ পূর্বাহ্ন

তিন মহাদেশে একসঙ্গে বন্যা, দাবানল, দাবদাহ

Reporter Name / ৮৯ Time View
Update : সোমবার, ১৭ জুলাই, ২০২৩

বিশ্বব্যাপী উষ্ণায়নের প্রভাবে যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপ ও এশিয়া-এই তিন মহাদেশে একসঙ্গে চলছে বন্যা, দাবানল ও দাবদাহ। বিশ্বজুড়ে এক কোটিরও বেশি মানুষ উচ্চ তাপমাত্রার সঙ্গে লড়াই করছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া থেকে টেক্সাস পর্যন্ত একটি শক্তিশালী তাপপ্রবাহে ‘অত্যন্ত গরম ও বিপজ্জনক সপ্তাহ’  সতর্কতা জারি করেছিল মার্কিন জাতীয় আবহাওয়া পরিষেবা। দিনের উষ্ণতা স্বাভাবিকের চেয়ে ১০ থেকে ২০ ডিগ্রি ফারেনহাইট বেশি হওয়ার পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছিল। দেশটির আরেক রাজ্য অ্যারিজোনার রাজধানী ফিনিক্সের তাপমাত্রা টানা ১৬ দিন ১০৯ ডিগ্রি ফারেনহাইট (৪৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস) উপরে রেকর্ড করা হয়েছে।

রাজ্যটি ১১১ ফারেনহাইট তাপমাত্রার মুখোমুখি হয়। অঞ্চলটির তাপমাত্রা ১১৫ ডিগ্রি ফারেনহাইট হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছিল। পৃথিবীর উষ্ণতম স্থানগুলোর মধ্যে একটি ক্যালিফোর্নিয়ার ডেথ ভ্যালি। রোববার এর তাপমাত্রা ১৩০ ডিগ্রি ফারেনহাইট (৫৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস) হতে পারে বলে ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল। অতিরিক্ত এই তাপমাত্রায় স্থানীয়দের  দিনের বেলায় বাইরের কার্যকলাপ এড়িয়ে যেতে ও ডিহাইড্রেশন থেকে সতর্ক থাকতে পরামর্শ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

টেক্সাসের হিউস্টনে ২৮ বছর বয়সি একজন নির্মাণ শ্রমিক এএফপিকে বলেন, ‘যখন আমি পানি পান করি তখন আমার মাথা ঘোরায়, প্রচণ্ড গরমে বমি ভাব হয়।’ চলমান এই তাপতাণ্ডবের মধ্যেই চরম আকার ধারণ করেছে দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়ার দাবানল। অঞ্চলটির রিভারসাইড কাউন্টিসহ ৭,৫০০ একরেরও (৩,০০০ হেক্টর) বেশি অংশ পুড়ে গেছে। আশপাশের অঞ্চলের বাসিন্দাদের সরিয়ে নেওয়ার আদেশ দেওয়া হয়েছে। একই দশা কানাডাতেও। চলতি বছর রেকর্ড ছাড়ানো দাবানল শুরু হয়েছে উত্তর কানাডায়।

দেশটির সরকারের এক পরিসংখ্যানে দেখানো হয়েছে, দাবানলে ১০ মিলিয়ন হেক্টর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। সামনে আরও ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

ইউরোপ মহাদেশের ইতালির রোম, বোলোগনা ও ফ্লোরেন্সসহ ১৬ শহরে অতিরিক্ত তাপপ্রবাহের ‘রেড অ্যালার্ট’ জারি করেছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। রোমে সোমবারের তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস আর মঙ্গলবারের তাপমাত্রা ৪৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস হতে পারে বলে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। ইউরোপীয় মহাকাশ সংস্থা সিসিলি এবং সার্ডিনিয়া দ্বীপপুঞ্জ ৪৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় শুকিয়ে যেতে পারে বলে সতর্ক করেছে।

পর্যন্ত গ্রিসে চলছিল সবচেয়ে উষ্ণ তাপমাত্রা। অতিরিক্ত তাপমাত্রার কারণে গ্রিসের অন্যতম শীর্ষ পর্যটন আকর্ষণ এথেন্সের অ্যাক্রোপলিস বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

উচ্চ তাপমাত্রার ফল ভোগ করছে ইউরোপের আরেক দেশ ফ্রান্স। অতিরিক্ত তাপমাত্রার ফলে সৃষ্ট খরায় দেশের কৃষিশিল্পের জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। ফ্রান্সের জাতীয় আবহাওয়া সংস্থা অনুযায়ী, চলতি বছরের জুনে উষ্ণতার দিক থেকে ফ্রান্স ছিল দ্বিতীয়। দেশের বেশ কয়েকটি অঞ্চলে তাপপ্রবাহ সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

একটি নতুন তাপপ্রবাহে ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জ এবং দক্ষিণ আন্দালুসিয়া অঞ্চলের তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের উপরে হবে বলে সতর্ক করেছে স্পেনের আবহাওয়া সংস্থা।

বন্যা-দাবদাহের শিকার এশিয়ার দেশগুলোও। গত কয়েক দিনের অতিবৃষ্টিতে জাপানে শুরু হয়েছে বন্যা। দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে বন্যার পানিতে ভেসে যাওয়া একটি গাড়িতে একজনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এর আগে বন্যায় সাতজনের নিহতের খবর পাওয়া যায়।  উলটো দিকে পূর্ব জাপানের কিছু অংশে রেকর্ড তাপমাত্রা ছাড়িয়ে যেতে পারে সতর্কতা জারি করেছে দেশের আবহাওয়া সংস্থা।

তাপমাত্রা ৩৮-৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছাবে বলে আশা করা হচ্ছে। টোকিওসহ প্রায় ২০ অঞ্চলে হিটস্ট্রোক সতর্কতা জারি করেছে দেশটির সরকার। নাগরিকদের শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার মধ্যে থাকতে বলা হয়েছে। এশিয়ার আরেক দেশ দক্ষিণ কোরিয়ায় গত চার দিন ধরে ভারি বৃষ্টিপাতের ফলে বন্যা ও ভূমিধ্বস দেখা দিয়েছে। এতে কমপক্ষে ৩৩ জন নিহত ও ১০ জন নিখোঁজ হয়েছে। উদ্ধারকারীরা একটি বন্যার সুড়ঙ্গে আটকে পড়া গাড়িগুলো থেকে মৃতদেহ উদ্ধারের চেষ্টা চালায়। ইতোমধ্যে ৭টি লাশ উদ্ধার করেছে। আরও বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

গত কয়েক দিন ধরেই তীব্র দাবদাহে পুড়ছিল ভারত। এবার অতিরিক্ত বৃষ্টিতে সৃষ্ট বন্যায় উত্তর ভারতে ১৪৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। ভারতের বর্ষাকালে বড় ধরনের বন্যা এবং ভূমিধস সাধারণ ঘটনা হলেও বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে এর তীব্রতা বাড়ছে।

নতুন এক পরিসংখ্যানে বলা হয়েছে জুন মাস থেকে এ পর্যন্ত সারাদেশের বন্যা পরিস্থিতির কারণে ৬২৪ জনের প্রাণহানি হয়েছে। প্রতিবেশী দেশ চীনে দাবদাহ। রোববার বেশ কয়েকটি অঞ্চলে উচ্চ তাপমাত্রা সতর্কতা জারি করেছে বেইজিং। আংশিক মরু অঞ্চল  জিনজিয়াংয়ে ৪০-৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস আর দক্ষিণ গুয়াংজি অঞ্চলে ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পোঁছাতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। অতিরিক্ত তাপমাত্রায় ইরাকের টাইগ্রিস নদী শুকিয়ে যাচ্ছে। দেশটিতে এখন বর্তমান তাপমাত্রা প্রায় ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category