• মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ১০:২৫ অপরাহ্ন

৫৮ আসনে ৫১৯ মনোনয়নপ্রত্যাশী চট্টগ্রাম বিভাগে

Reporter Name / ১৩৩ Time View
Update : সোমবার, ১৪ আগস্ট, ২০২৩

চট্টগ্রাম বিভাগের ১১টি জেলার ৫৮টি সংসদীয় আসনে ৫১৯ জন আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন দল থেকে মনোনয়ন পেতে মাঠে রয়েছেন। এর মধ্যে চট্টগ্রামের ১৬টি আসনে ৯৩ জন, কুমিল্লার ১১টি আসনে ৯৮, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ছয়টি আসনে ৭৮, নোয়াখালীর ছয়টি আসনে ৫১, চাঁদপুরের পাঁচটি আসনে ৬২, লক্ষ্মীপুরের চার আসনে ৩৭, কক্সবাজারের চারটি আসনে ৩৮, ফেনীর তিনটি আসনে ৩৭, রাঙামাটির একটি আসনে ১২, বান্দরবানের একটি আসনে ছয়জন এবং খাগড়াছড়ির একটি আসনে সাতজন মাঠে রয়েছেন। চট্টগ্রাম বিভাগের ৫৮টি আসনে আওয়ামী লীগের ২৩৩ জন, বিএনপির ১৫৬ জন, জাতীয় পার্টির ৫৮ জন এবং এলডিপি, জামায়াতে ইসলামী, কল্যাণ পার্টিসহ অন্যান্য দলের ৭২ জন মনোনয়নপ্রত্যাশী রয়েছেন। আসনওয়ারি বিভিন্ন দলের মনোনয়নপ্রত্যাশী নেতাদের নাম তুলে ধরা হলো-

চট্টগ্রাম জেলার ১৬টি আসনের সম্ভাব্য প্রার্থী : চট্টগ্রাম-১ আসনে (মীরসরাই) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, গিয়াস উদ্দিন, নিয়াজ মোরশেদ চৌধুরী এলিট, মাহবুবুর রহমান রুহেল; বিএনপির সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল আমিন, উত্তর জেলা বিএনপির সহসভাপতি নুরুল আমিন, সাহিদুল ইসলাম চৌধুরী; সাবেক এমপি এমএ জিন্নাহ।

চট্টগ্রাম-২ আসনে (ফটিকছড়ি) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের সংরক্ষিত মহিলা আসনের বর্তমান এমপি খাদিজাতুল আনোয়ার সনি, নাজিম উদ্দিন মুহুরী, ফটিকছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তৈয়ব, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন চৌধুরী, ফখরুল আনোয়ার; বিএনপির কাদের গণি চৌধুরী, কর্নেল (অব.) আজিম উল্লাহ বাহার, সরওয়ার আলমগীর, সাবেক বিচারপতি ফয়সাল মাহমুদ ফয়জী; তরিকত ফেডারেশনের বর্তমান এমপি সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভাণ্ডারী; বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ সাইফুদ্দিন আহমদ মাইজভাণ্ডারী।

চট্টগ্রাম-৩ আসনে (সন্দ্বীপ) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি মাহফুজুর রহমান মিতা, গাছুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজান, আবদুল কাদের মিয়া, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি ডা. জামাল উদ্দিন; বিএনপির সাবেক এমপি মোস্তফা কামাল পাশা, আবু তাহের, মোস্তফা কামাল পাশা বাবু, ইঞ্জিনিয়ার বেলায়েত হোসেন; জামায়াতে ইসলামীর আলাউদ্দিন সিকদার; জাতীয় পার্টির আবদুস সালাম; জাসদের নুরুল আক্তার।

চট্টগ্রাম-৪ আসনে (সীতাকুণ্ড) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি দিদারুল আলম, উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম আল মামুন, লায়ন মো. ইমরান; বিএনপির লায়ন আসলাম চৌধুরী।

চট্টগ্রাম-৫ আসনে (হাটহাজারী) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-জাতীয় পার্টির বর্তমান এমপি ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ; আওয়ামী লীগের সাবেক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এমএ সালাম, ইউনুচ গণি চৌধুরী; বিএনপির মীর মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন, মীর মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন, এসএম ফজলুল হক, সাবেক এমপি ও হুইপ ওয়াহিদুল আলমের মেয়ে শাকিলা ফারজানা; কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) মো. ইবরাহিম বীর-প্রতীক।

চট্টগ্রাম-৬ আসনে (রাউজান) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী, মাহফুজুল হায়দার চৌধুরী রোটন, দেবাশীষ পালিত; বিএনপির গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরী, গোলাম আকবর খোন্দকার, গিয়াস কাদের চৌধুরীর ছেলে সামির কাদের চৌধুরী; জাতীয় পার্টির ব্যারিস্টার সানজিব রশিদ চৌধুরী।

চট্টগ্রাম-৭ আসনে (রাঙ্গুনিয়া) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি, তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, ডা. ফয়সাল ইকবাল চৌধুরী; বিএনপির সালাহ উদ্দিন কাদের চৌধুরীর ছেলে হুম্মাম কাদের চৌধুরী, অধ্যাপক কুতুব উদ্দিন বাহার, অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম; জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি নজরুল ইসলাম।

চট্টগ্রাম-৮ আসনে (বোয়ালখালী-চান্দগাঁও আংশিক) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি নোমান আল মাহমুদ, সাবেক মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসির ছেলে মুজিবুর রহমান, সাবেক রাষ্ট্রদূত এসএম আবুল কালাম, চট্টগ্রাম নাগরিক ফোরামের চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার মনোয়ার হোসেন, আবদুল কাদের সুজন, সাবেক এমপি মোছলেম উদ্দিন আহমদের স্ত্রী শিরীন আক্তার, বিজিএমইএ’র সাবেক প্রথম সহসভাপতি এসএম আবু তৈয়ব; বিএনপির আবু সুফিয়ান, এরশাদ উল্লাহ; জাসদের সাবেক এমপি প্রয়াত মঈনউদ্দিন খান বাদলের স্ত্রী সেলিনা খান; জাতীয় পার্টির এয়াকুব হোসেন, আমান উল্লা আমান।

চট্টগ্রাম-৯ আসনে (কোতোয়ালি) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি ও শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, সাবেক মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসির ছেলে মুজিবুর রহমান; বিএনপির ডা. শাহাদাত হোসেন, আবুল হাশেম বক্কর; জাতীয় পার্টির সোলায়মান আলম শেঠ।

চট্টগ্রাম-১০ আসন (ডবলমুরিং) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি মহিউদ্দিন বাচ্চু, ডা. আফছারুল আমীনের ভাই এরশাদুল আমীন, স্ত্রী ডা. অধ্যাপক কামরুননেছা, ছেলে ফয়সাল আমীন, নগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি খোরশেদ আলম সুজন, একেএম বেলায়েত হোসেন, বদিউল আলম, হেলাল উদ্দিন চৌধুরী তুফান, সৈয়দ মাহমুদুল হক, সাবেক সিটি মেয়র এম মনজুর আলম, ফরিদ মাহমুদ; বিএনপির সাবেক মন্ত্রী আবদুল্লাহ আল নোমান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীর ছেলে ইসরাফিল খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

চট্টগ্রাম-১১ আসনে (বন্দর-পতেঙ্গা) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি এমএ লতিফ, সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, সিটি করপোরেশনের সাবেক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন, আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, মশিউর রহমান চৌধুরী; বিএনপির সাবেক মন্ত্রী আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, এমএ আজিজ।

চট্টগ্রাম-১২ আসনে (পটিয়া) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি ও জাতীয় সংসদের হুইপ সামশুল হক চৌধুরী, বদিউল আলম, বিজিএমইএ নেতা মো. নাছির, মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, অধ্যাপক হারুনুর রশীদ, সংরক্ষিত আসনের সাবেক এমপি চেমন আরা তৈয়ব, যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী জুলকারনাইন চৌধুরী জীবন, মেজর জেনারেল (অব.) এম এ ওয়াদুদ; বিএনপির এনামুল হক এনাম, সাবেক এমপি গাজী শাহজাহান জুয়েল, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ইদ্রিস মিয়া; জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, নুরুচ্ছাফা সরকার।

চট্টগ্রাম-১৩ আসনে (আনোয়ারা) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি ও ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ, সংরক্ষিত আসনের এমপি ওয়াসিকা আয়েশা খান; বিএনপির সাবেক এমপি সরওয়ার জামাল নিজাম, আলী আব্বাস, মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী; জাতীয় পার্র্টির সুজন দে, আবদুর রব চৌধুরী টিপু, আবদুস সাত্তার রনি।

চট্টগ্রাম-১৪ আসনে (চন্দনাইশ-সাতকানিয়া আংশিক) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি নজরুল ইসলাম চৌধুরী, ব্যারিস্টার ইমতিয়াজ উদ্দিন আহমেদ আসিফ, মফিজুর রহমান, আবদুল কৈয়ুম চৌধুরী; এলডিপির কর্নেল (অব.) অলি আহম্মদ; বিএনপির ডা. মহসিন জিল্লুর করিম, অ্যাডভোকেট মিজানুল হক চৌধুরী, নুরুল আনোয়ার; জাতীয় পার্টির আ জা ম অলিউল্লাহ চৌধুরী মাসুদ, সোনা মিয়া ও একেএম বাদশা মিয়া।

চট্টগ্রাম-১৫ আসনে (সাতকানিয়া-লোহাগাড়া) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজাম উদ্দীন; আমিনুল ইসলাম আমিন, সাতকানিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান এমএ মোতালেব সিআইপি, আবু সুফিয়ান, ডা. আ ম ম মিনহাজুর রহমান; বিএনপির নাজমুল মোস্তফা আমিন, মুজিবুর রহমান, আবদুল গাফফার চৌধুরী; জামায়াতে ইসলামীর সাবেক এমপি শাহজাহান চৌধুরী, সাবেক এমপি আ ন ম শামসুল ইসলাম, জাফর সাদেক।

চট্টগ্রাম-১৬ আসনে (বাঁশখালী) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী, মুজিবুর রহমান সিআইপি, অ্যাডভোকেট এএইচএম জিয়াউদ্দিন, সাবেক এমপি সুলতানুল কবিরের ছেলে চৌধুরী গালিব সাদলি, আবদুল্লাহ কবির লিটন, মোকাম্মেল হক চৌধুরী আলাল, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার; বিএনপির সাবেক প্রতিমন্ত্রী জাফরুল ইসলাম চৌধুরীর ছেলে জহিরুল ইসলাম চৌধুরী আলমগীর, মিশকাতুল ইসলাম চৌধুরী বাপ্পা, সাবেক পৌর মেয়র কামরুল ইসলাম হোসাইনি, লিয়াকত আলী, ইফতেখার হোসেন চৌধুরী মহসিন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলমগীর কবির চৌধুরী; জাতীয় পার্টির সাবেক সিটি মেয়র ও সাবেক এমপি মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী; জামায়াতে ইসলামীর সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম চৌধুরী।

কুমিল্লা জেলার ১১টি আসনের সম্ভাব্য প্রার্থী : কুমিল্লা-১ আসনে (দাউদকান্দি-তিতাস) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন- আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি মেজর জেনারেল (অব.) সুবিদ আলী ভূঁইয়া, ইঞ্জিনিয়ার আবদুস সবুর, ড. আবদুল মান্নান, ব্যারিস্টার নাঈম হাসান; বিএনপির সাবেকমন্ত্রী ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন, আবদুল মতিন; জাতীয় পার্টির আমির হোসেন ভূঁইয়া, আবু জায়েদ আল মাহমুদ, ইফতেখার আহমেদ হাসান।

কুমিল্লা-২ আসনে (হোমনা-মেঘনা) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি সেলিমা আহমদ মেরী, অধ্যক্ষ আবদুল মজিদ, সফিকুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আলী আহম্মদ; বিএনপির সাবেকমন্ত্রী ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন, ইঞ্জিনিয়ার আবদুল মতিন খান, অধ্যক্ষ সেলিম ভূঁইয়া, জহিরুল হক জহুর, রমিজ উদ্দিন; জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি আমির হোসেন ভূঁইয়া, ইসমাইল সিরাজী, মাহমুদুল হাসান মাখন সরকার, এটিএম মঞ্জুরুল ইসলাম শামীম।

কুমিল্লা-৩ আসনে (মুরাদনগর) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন- আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন এফসিএ, জাহাঙ্গীর আলম সরকার; বিএনপির সাবেক এমপি কাজী শাহ মোফাজ্জল হোসেন কায়কোবাদ, কেএম মুজিবুল হক; জাতীয় পার্টির আক্তার হোসেন, নাজমা আক্তার।

কুমিল্লা-৪ আসনে (দেবিদ্বার) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন- আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি রাজী মোহাম্মদ ফখরুল, রোশন আলী মাস্টার, দেবিদ্বার উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, ইফতেখার মোস্তফা, ডা. ফেরদৌস খন্দকার; বিএনপির সাবেক এমপি ইঞ্জিনিয়ার মঞ্জুরুল আহসান মুন্সি; জাতীয় পার্টির অধ্যাপক ইকবাল হোসেন রাজু, অ্যাডভোকেট. ইউসুফ আজগর; জামায়াতে ইসলামীর সাইফুল ইসলাম শহীদ।

কুমিল্লা-৫ আসনে (বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট আবুল হাসেম খান, হাজি জাহাঙ্গীর খান চৌধুরী, বুড়িচং উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান সাজ্জাদ হোসেন স্বপন, অধ্যক্ষ আবু সালেহ মোহাম্মদ সেলিম রেজা সৌরভ, এহতেশামুল হাসান ভূঁইয়া রুমি, শাহজালাল মোল্লা, মেজর জেনারেল (অব.) মোস্তাফিজুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা ড. এসএম জাহাঙ্গীর আলম, সাবেক এমপি আবদুল মতিন খসরুর স্ত্রী সেলিমা সোবহান খসরু, অ্যাডভোকেট আবদুল মমিন ফেরদৌস, আবদুছ ছালাম বেগ, মাহাবুব হোসেন, ইঞ্জিনিয়ার আল আমিন; বিএনপির শওকত মাহমুদ, এএসএম আলাউদ্দিন ভূঁইয়া, জসিম উদ্দিন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান; জাতীয় পার্টির বীর মুক্তিযোদ্ধা তাজুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর আলম; জামায়াতে ইসলামীর ড. মোহাম্মদ মোবারক হোসেন; ইসলামী ফ্রন্টের গাজী মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম।

কুমিল্লা-৬ আসনে (সদর) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন- আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি হাজি আ ক ম বাহার উদ্দিন বাহার; সংরক্ষিত আসনের এমপি আঞ্জুমা সুলতানা সীমা; বিএনপির হাজি আমিনুর রশিদ ইয়াছিন; সাবেক সিটি মেয়র মনিরুল হক সাক্কু; জাতীয় পার্টির এয়ার আহমেদ সেলিম।

কুমিল্লা-৭ আসনে (চান্দিনা) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন- আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক প্রাণ গোপাল দত্ত, মুনতাকিম আশরাফ টিটু, সহিদ উল্লাহ; লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) বীর মুক্তিযোদ্ধা ড. রেদোয়ান আহমেদ; বিএনপির আতিকুল আলম শাওন; জাতীয় পার্টির নলুৎফুর রেজা খোকন, ইসলামি আন্দোলনের মাওলানা আবুল কালাম কাসেমী।

কুমিল্লা-৮ আসনে (বরুড়া) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন- আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি নাছিমুল আলম চৌধুরী নজরুল, এ জেড শফিউদ্দিন শামীম, সাবেক এমপি আবদুল হাকিমের ছেলে এএমএন মইনুল ইসলাম ও অ্যডভোকেট কামরুল ইসলাম; বিএনপির সাবেক এমপি জাকারিয়া তাহের সুমন; জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি অধ্যাপক নুরুল ইসলাম মিলন; ওলামা পার্টির মাওলানা ইরফান বিন তোরাব আলী।

কুমিল্লা-৯ আসনে (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন- আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি ও মন্ত্রী তাজুল ইসলাম; বিএনপির সাবেক এমপি কর্নেল (অব.) আনোয়ারুল আজিম, আবুল কালাম, রশিদ আহম্মদ হোসাইনী, সফিকুর রহমান সফিক; জাতীয় পার্টির প্রফেসর গোলাম মোস্তফা, ইসলামি শাসনতন্ত্র আন্দোলনের সেলিম মাহমুদ।

কুমিল্লা-১০ আসনে (সদর দক্ষিণ-নাঙ্গলকোট) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন- আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি ও মন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল, সাংবাদিক নঈম নিজাম; বিএনপির সাবেক এমপি মনিরুল হক চৌধুরী, সাবেক এমপি আবদুল গফুর ভূঁইয়া, মোবাশ্বের আলম ভূঁইয়া; জামায়াতে ইসলামীর ইয়াছিন আরাফাত।

কুমিল্লা-১১ আসনে (চৌদ্দগ্রাম) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন- আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি ও সাবেক রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক, আ. ছোবহান, জসিম উদ্দিন, চৌদ্দগ্রাম পৌরসভার সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান, কামাল আবু নাসের চৌধুরী, তমিজ উদ্দিন সেলিম; বিএনপির কামরুল হুদা, জামায়াতে ইসলামীর সাবেক এমপি ড. সৈয়দ আবদুল্লাহ মো. তাহের; জাতীয় পার্টির কাজী নাহীদ।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার ছয়টি আসনের সম্ভাব্য প্রার্থী : ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ আসনে (নাসিরনগর) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি বিএম ফরহাদ হোসেন সংগ্রাম; নাজির মিয়া, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এটিএম মনিরুজ্জামান সরকার, সৈয়দ মোহাম্মদ এহসান, একেএম আলমগীর, অ্যাডভোকেট রাখেশ চন্দ্র সরকার, ইঞ্জিনিয়ার ইহতেশামুল কামাল; বিএনপির সৈয়দ একে একরামুজ্জামান সুখন, এমএ হান্নান, অ্যাডভোকেট কামরুজ্জামান মামুন; জাতীয় পার্টির শাহানুল করিম গরিবুল্লাহ সেলিম; ইসলামিক ফ্রন্টের অ্যাডভোকেট ইসলাম উদ্দিন দুলাল, ইসলামী ঐক্যজোটের আবুল কাশেম মুহাম্মদ আশরাফুল হক, ইসলামী আন্দোলনের হুসেইন আহমদ; জাতীয় পার্টির (বিজিবি) ফায়েজুল হক, বাসদের বকুল হোসেন খান।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনে (সরাইল-আশুগঞ্জ) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-বর্তমান এমপি ও বিএনপির দলছুট নেতা উকিল আব্দুস সাত্তার ভুঁইয়া, আওয়ামী লীগের মঈন উদ্দিন মঈন, সংরক্ষিত আসনের এমপি উম্মে ফাতেমা নাজমা বেগম (শিউলী আজাদ), মাহবুবুল বারী চৌধুরী মন্টু, শাহজাহান আলম সাজু, অ্যাডভোকেট নাজমুল হক, অ্যাডভোকেট সৈয়দ তানভীর হোসেন কাউসার, অ্যাডভোকেট আশরাফ উদ্দিন মন্তু, কামরুজ্জামান আনসারী, মোহাম্মদ হানিফ মুন্সী, সরাইল উপজেলা চেয়ারম্যান রফিক উদ্দিন ঠাকুর, ছানাউল্লা মিয়া, সাংবাদিক মোহাম্মদ জালাল মিয়া; বিএনপির ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা, শেখ মোহাম্মদ শামীম, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আবদুর রহমান, আক্তার হোসেন, তরুণ দে, আহসান উদ্দিন খান শিপন, আবু হাসিব; জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা, অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া; ইসলামী ঐক্যজোটের হাফেজ মাওলানা আবুল হাসানাত আমিনী; জাকের পার্টির জহিরুল ইসলাম জুয়েল; ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) রাজ্জাক হোসেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনে (সদর-বিজয়নগর) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী; সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ফিরোজুর রহমান ওলি; বিএনপির ইঞ্জিনিয়ার খালেদ হোসেন মাহবুব শ্যামল; জাতীয় পার্টির অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া; ইসলামী ঐক্যজোটের হাফেজ মাওলানা আবুল হাসানাত আমিনী।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ আসনে (কসবা-আখাউড়া) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক; বিএনপির সাবেক এমপি মুশফিকুর রহমান, ইঞ্জিনিয়ার মুসলেহ উদ্দিন, নাসির উদ্দিন হাজারী, কবীর আহমেদ ভূঁইয়া, মামুনুর রশীদ মোহন; জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) আলহাজ সেলিম মাস্টার ও তারেক এ আদেল।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ আসনে (নবীনগর) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি মোহাম্মদ এবাদুল করিম বুলবুল, সাবেক এমপি ফয়জুর রহমান বাদল, আলামিনুল হক আলামিন, অ্যাডভোকেট কাজী মোর্শেদ হোসেন কামাল, ব্যারিস্টার জাকির আহম্মেদ; বিএনপির অ্যাডভোকেট আবদুল মান্নান, কাজী নাজমুল হোসেন তাপস, তকদীর হোসেন মো. জসিম, সাইদুল হক সাইদ; জাতীয় পার্টির কাজী মামুনুর রশীদ ও মোবারক হোসেন দুলু।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬ আসনে (বাঞ্ছারামপুর) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি ক্যাপ্টেন (অব.) এবি তাজুল ইসলাম তাজ; মহিউদ্দিন আহমেদ মহি, সাঈদ আহমেদ বাবু, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) প্রফেসর ডা. একে মাহবুবুল হক, বাঞ্ছারামপুর উপজেলা চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম; বিএনপির সাবেক এমপি এ আবদুল খালেক, রফিক শিকদার, মেহেদী হাসান পলাশ, ডা. রফিকুল ইসলাম খোকন, ইঞ্জিনিয়ার কাজী দবির উদ্দিন, ড. সাইদুজ্জামান কামাল; জাতীয় পার্টির জেসমিন নূর বেবি (প্রিয়াঙ্কা)।

নোয়াখালী জেলার ছয়টি আসনের সম্ভাব্য প্রার্থী : নোয়াখালী-১ আসনে (চাটখিল-সোনাইমুড়ী) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি এইচ এম ইব্রাহিম, জাহাঙ্গীর আলম, সোনাইমুড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান খন্দকার রুহুল আমিন, চাটখিল উপজেলা চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির, ড. মো. ফারুখ, অ্যাডভোকেট আবদুন নুর দুলাল; বিএনপির ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, আমিন আহমেদ ভূঁইয়া; জাসদের (ইনু) ইঞ্জিনিয়ার হারুনুর রসিদ, জাসদের (রব) আমির হোসেন, হাবিবুর রহমান; জাতীয় পার্টির সালাহ উদ্দিন আহমেদ; জামায়াতে ইসলামীর মওলানা সাইফুল্লাহ।

নোয়াখালী-২ আসনে (সেনবাগ) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি মোরশেদ আলম, ড. জামাল উদ্দিন এফসিএ, আতাউর রহমান ভূঁইয়া মানিক, লায়ন জাহাঙ্গীর আলম মানিক; বিএনপির জয়নাল আবেদিন ফারুক ও কাজী মফিজুর রহমান; জাতীয় পার্টির হাসান মন্জুর; জামায়াতে ইসলামীর মওলানা সাঈদ আহম্মেদ।

নোয়াখালী-৩ আসনে (বেগমগঞ্জ) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি মামুনুর রসিদ কিরন, জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ডা. এবিএম জাফর উল্লাহ, চৌমুহনী পৌরসভার সাবেক মেয়র আক্তার হোসেন ফয়সাল, মিনাজ উ আহমেদ জাবেদ ও আবুল কাশেম; বিএনপির বরকত উল্লা বুলু, অ্যাডভোকেট আবদুর রহিম; জেএসডির সিরাজ মিয়া ও নুর রহমান চেয়ারম্যান; জামায়াতে ইসলামীর মওলানা বোরহান উদ্দিন, ইসলামী আন্দোলনের মওলানা নুর উদ্দীন।

নোয়াখালী-৪ আসনে (সদর-সুবর্ণচর) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি একরামুল করিম চৌধুরী, সুবর্ণচর উপজেলা চেয়ারম্যান খায়রুল আনম চৌধুরী সেলিম, সদর উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীন, অ্যাডভোকেট ড. বসির আহমেদ; বিএনপির সাবেক এমপি মো. শাজাহান; জেএসডির ইকবাল হোসেন ও আমির হোসেন; জাসদের অ্যাডভোকেট আজিজুল হক বকসি; জামায়াতে ইসলামীর মওলানা অধ্যাপক বোরহানউদ্দিন; খেলাফতের মওলানা মমিনুল হক; কমিউনিস্ট পার্টির জাফর উল্লা।

নোয়াখালী-৫ আসনে (কোম্পানীগঞ্জ-কবিরহাট) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী বর্তমান এমপি ও মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের; বিএনপির ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের স্ত্রী হাসনা জসিমউদ্দীন মওদুদ, ফকরুল ইসলাম; জেএসডির হেলালুদ্দিন।

নোয়াখালী-৬ আসনে (হাতিয়া) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি আয়েশা ফেরদৌস, সাবেক এমপি মোহাম্মদ আলী; বিএনপির সাবেক এমপি ফজলুল আজিম; জেএসডির আবদুল ওয়াহাব।

কক্সবাজার জেলার চারটি আসনের সম্ভাব্য প্রার্থী : চারটি আসনে বিভিন্ন দলের ৩৯ জন মনোনয়নপ্রত্যাশী রয়েছেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের ২৭, বিএনপির ১১ জন।

কক্সবাজার-১ আসনে (চকরিয়া-পেকুয়া) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি জাফর আলম, সালাহ উদ্দিন সিআইপি, রাসেদুল ইসলাম, ড. আশরাফুল ইসলাম সজিব ও রেজাউল করিম; বিএনপির সাবেক যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী সালাহ উদ্দিন আহমেদ ও তার স্ত্রী হাসিনা আহমেদ।

কক্সবাজার-২ আসনে (মহেশখালী-কুতুবদিয়া) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি আশেক উল্লাহ রফিক, অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তাফা, ড. আনছারুল করিম, ওসমান গণি, অ্যাডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী, তারেক বিন ওসমান শরিফ; বিএনপির সাবেক যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী সালাহ উদ্দিন আহমেদ, সাবেক এমপি আলমগীর ফরিদ, এটিএম নুরুল বশর চৌধুরী ও আবু বক্কর সিদ্দিক।

কক্সবাজার-৩ আসনে (সদর, রামু ও ঈদগাঁও) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি সাইমুম সরওয়ার কমল, লে. কর্নেল (অব.) ফোরকান আহমেদ, মুজিবুর রহমান, ব্যারিস্টার মিজান সায়ীদ, নজিবুল ইসলাম, নাজনিন সরওয়ার কাবেরী, রামু উপজেলা চেয়ারম্যান সোহেল সরওয়ার কাজল, সংরক্ষিত আসনের এমপি কানিজ ফাতেমা আহমেদ; বিএনপির সাবেক এমপি লুৎফুর রহমান কাজল, সাবেক এমপি ইঞ্জিনিয়ার শহিদুজ্জামান ও অধ্যাপক আজিজুর রহমান চৌধুরী।

কক্সবাজার-৪ আসনে (উখিয়া-টেকনাফ) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের সাবেক এমপি আবদুর রহমান বদি, তার স্ত্রী বর্তমান এমপি শাহীন আক্তার বদি, জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী, সোহেল আহমেদ বাহাদুর, নুরুল বশর, রিয়াজ মোর্শেদ, রাজা শাহ আলম, অ্যাডভোকেট ফরিদুল আলম; বিএনপির সাবেক এমপি শাহাজান চৌধুরী ও আবদুল্লাহ।

লক্ষ্মীপুর জেলার চারটি আসনের সম্ভাব্য প্রার্থী : লক্ষ্মীপুর-১ আসনে (রামগঞ্জ) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি আনোয়ার হোসেন খান, সফিকুল ইসলাম ও এমএ মমিন পাটোয়ারী; বিএনপির ড. মামুন আহমেদ, সাবেক এমপি সদস্য নাজিম উদ্দিন আহমেদ, হারুনুর রশিদ কমিশনার, ইমাম হোসেন ও ইয়াসিন আলী; এলডিপির শাহাদাত হোসেন; জাতীয় পার্টির মাহমুদুর রহমান মাহমুদ; জামায়াতে ইসলামীর মাওলানা লুৎফুর রহমান।

লক্ষ্মীপুর-২ আসনে (রায়পুর ও সদরের একাংশ) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়ন, হারুনুর রশিদ, ডা. এহসানুল কবীর জগলুল ও শামছুল ইসলাম পাটোয়ারী; বিএনপির সাবেক এমপি আবুল খায়ের ভূঁইয়া ও সাহাব উদ্দিন সাবু; জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি মোহাম্মদ নোমান, শেখ ফয়েজ উল্লাহ শিপন ও বোরহান উদ্দিন মিঠু; জামায়াতের মাস্টার মাওলানা রুহুল আমিন।

লক্ষ্মীপুর-৩ আসনে (সদর) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের গোলাম ফারুক পিংকু, সজিব গ্রুপের চেয়ারম্যান এমএ হাশেম ও এমএ সাত্তার; বিএনপির সাবেক এমপি শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি; জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি মোহাম্মদ উল্লাহ ও এম আর মাসুদ; জামায়াতে ইসলামীর ডা. রেজাউল করিম।

লক্ষ্মীপুর-৪ আসনে (রামগতি ও কমলনগর) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-বর্তমান এমপি ও বিকল্পধারার মহাসচিব মেজর (অব.) এমএ মান্নান, আওয়ামী লীগের সাবেক এমপি ফরিদুন্নাহার লাইলি, সাবেক এমপি আবদুল্লাহ আল মামুন, আব্দুজ্জাহের সাজু ও ইস্কান্দার মির্জা শামীম; বিএনপির সাবেক এমপি এবিএম আশরাফ উদ্দিন নিজান; জাসদের আ স ম আবদুর রব; জামায়াতে ইসলামীর এআর হাফিজ উল্লাহ; রামগতি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শরাফ উদ্দিন আজাদ সোহেল (স্বতন্ত্র)।

চাঁদপুর জেলার পাঁচটি আসনের সম্ভাব্য প্রার্থী : চাঁদপুর-১ আসনে (কচুয়া) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর, ড. সেলিম মাহমুদ, এনবিআর সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম হোসেন, ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশের (আইইবি) ভাইস প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার শাহাদাৎ হোসেন শীবলু; বিএনপির মোশাররফ হোসেন মিয়াজী, সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ড. আ ন ম এহসানুল হক মিলন, নাজমুন নাহার বেবী, জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি ডা. অধ্যাপক শহীদুল ইসলাম ও এমদাদুল হক রুমন।

চাঁদপুর-২ আসনে (মতলব উত্তর ও দক্ষিণ) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, প্রতিমন্ত্রী ড. সামছুল আলম মোহন, বর্তমান এমপি অ্যাডভোকেট নুরুল আমিন রুহুল, মাইনুল ইসলাম নিখিল, ইসফাক আহসান, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মন্জুর আহমেদ মন্জু, শেফালি আক্তার ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান (এসি মিজান); বিএনপির ড. জালাল উদ্দিন ও সাবেক মন্ত্রী নুরুল হুদার ছেলে তানভীর হুদা; জাতীয় পার্টির এমরান হোসেন মিয়া।

চাঁদপুর-৩ আসনে (চাঁদপুর-হাইমচর) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, সুজিত রায় নন্দী, নাছির উদ্দিন আহমেদ, রেদওয়ান খান বোরহান; বিএনপির শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক ও মোস্তফা খান সফরী; জাতীয় পার্টির অ্যাডভোকেট আবদুল লতিফ শেখ ও অ্যাডভোকেট মহসিন; গণফোরামের অ্যাডভোকেট সেলিম আকবর, জামায়াতে ইসলামীর সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ শাহজাহান।

চাঁদপুর-৪ আসনে (ফরিদগঞ্জ) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি সাংবাদিক মুহাম্মদ শফিকুর রহমান, সাবেক এমপি ড. মোহাম্মদ শামসুল হক ভূঁইয়া, ফরিদগঞ্জ পৌর মেয়র আবুল খায়ের পাটোয়ারী, ডা. হারুনুর রশিদ সাগর, ফরিদগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জাহিদুল ইসলাম রোমান, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আবু সাহেদ সরকার, জালাল আহমেদ সিআইপি, ডা. মোস্তফা হোসেন, ডা. বদরুন নাহার; বিএনপির লায়ন মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ, আবদুল হান্নান, মোতাহার হোসেন পাটোয়ারী, অ্যাডভোকেট আব্বাস উদ্দিন ও শরীফ মোহাম্মদ ইউনুছ; জাতীয় পার্টির শেখ সাজ্জাদ রশিদ সুমন, মনিরুল ইসলাম মিলন, আবদুল আউয়াল মিয়াজী ও যুব সংহতির সাবেক কৃষিবিষয়ক সম্পাদক হারুন অর রশিদ; জামায়াতে ইসলামীর আহমদ উল্লাহ ও বিল্লাল হোসেন মিয়াজি; বাসদের আলমগীর হোসেন দুলাল ও হারুনুর রশিদ; ইসলামী আন্দোলনের মাওলানা মুকবুল হোসেন।

চাঁদপুর-৫ আসনে (হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম, সংরক্ষিত আসনের সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট নুরজাহান বেগম মুক্তা, প্রকৌশলী মোহাম্মদ হোসেন, জাকির হোসেন প্রধানিয়া, ইঞ্জিনিয়ার শফিকুর রহমান, হাজী উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী মোহাম্মদ মঈনুদ্দিন; বিএনপির ইঞ্জিনিয়ার মমিনুল হক; জাতীয় পার্টির খোরশেদ আলম খুশু, জামায়াতে ইসলামীর মাওলানা আবুল হোসাইন, ইসলামী ফ্রন্টের চেয়ারম্যান আল্লামা বাহাদুর শাহ।

ফেনী জেলার তিনটি আসনের সম্ভাব্য প্রার্থী : ফেনী-১ আসনে (ছাগলনাইয়া, পরশুরাম, ফুলগাজী) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-বর্তমান এমপি জাসদের (ইনু) শিরিন আক্তার; আওয়ামী লীগের শেখ আবদুল্লা, জালাল উদ্দিন চৌধুরী পাপ্পু, নিজাম উদ্দিন, মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী সোহেল; বিএনপির খালেদা জিয়া, শর্মিলা রহমান (আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী), রফিকুল আলম মজনু, নুর আহম্মদ মজুমদার, আবু তালেব; জাতীয় পার্টির নাজমা আক্তার, স্বতন্ত্র প্রার্থী ব্যারিস্টার নিজাম উদ্দীন ও নুরুন নেওয়াজ সেলিম।

ফেনী-২ আসনে (সদর) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি নিজাম উদ্দিন হাজারী, সাংবাদিক ইকবাল সোবহান চৌধুরী, নাসির উদ্দিন ভূঁইয়া, সাখাওয়াত হোসেন; বিএনপির সাবেক এমপি অধ্যাপক জয়নাল আবেদিন, সংরক্ষিত আসনের সাবেক এমপি রেহেনা আক্তার রানু, গাজী হাবিব উল্যা মানিক, শেখ ফরিদ বাহার; জামায়াতে ইসলামীর অধ্যাপক লিয়াকত আলী; জাতীয় পার্টির ইঞ্জিনিয়ার নজরুল ইসলাম, জহির উদ্দিন ও ইকবাল হোসেন।

ফেনী-৩ আসনে (দাগনভূঁইয়া ও সোনাগাজী) মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-জাতীয় পার্টির বর্তমান এমপি লে. জেনারেল মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী; আওয়ামী লীগের সোনাগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন মাহমুদ লিপ্টন, সাবেক এমপি হাজী রহিম উল্যা, দাগনভুঁইয়া উপজেলা চেয়ারম্যান দিদারুল কবির রতন, আবুল বাসার, আকরাম হোসেন হুমায়ুন, সোনাগাজী পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম খোকন; বিএনপির আবদুল লতিফ জনী, আকবর হোসেন ও ব্রিগেডিয়ার (অব.) নাসির উদ্দীন চৌধুরী; জামায়াতে ইসলামীর ফখরুউদ্দিন মানিক ও এম আবদুল্ল্যা।

রাঙামাটি জেলার একটি আসনের সম্ভাব্য প্রার্থী : এ আসনে মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি দীপঙ্কর তালুকদার, পার্বত্য উন্নয়ন বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা ও চিমকিউ রোয়াজা; বিএনপির লে. কর্নেল (অব.) মনীষ দেওয়ান, অ্যাডভোকেট দীপেন দেওয়ান, দীপন তালুকদার দীপু, সাবেক মেয়র সাইফুল ইসলাম চৌধুরী, অ্যাডভোকেট মামুনুর রশীদ, সাবেক উপমন্ত্রী মনি স্বপন দেওয়ান; জাতীয় পার্টির হারুনুর রশীদ মাতব্বর, প্রজেশ চাকমা ও অ্যাডভোকেট পারভেজ তালুকদার।

বান্দরবান জেলার একটি আসনের সম্ভাব্য প্রার্থী : এ আসনে মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-বর্তমান এমপি ও পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়নবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং, কাজী মুজিবুর রহমান ও আলী কদম উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম; বিএনপির সাবেক এমপি রাজপুত্র সাচিং প্রু জেরী, সংরক্ষিত নারী আসনের সাবেক এমপি মাম্যাচিং মার্মা ও সাবেক পৌর মেয়র জাবেদ রেজা।

খাগড়াছড়ি জেলার একটি আসনের সম্ভাব্য প্রার্থী : এ আসনে মনোনয়নপ্রত্যাশীরা হলেন-বর্তমান এমপি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান কংজরি চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা রণবিক্রম ত্রিপুরা, সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি বাসন্ত চাকমা; বিএনপির পার্বত্য উন্নয়ন বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান ওয়াদুদ ভূঁইয়া ও এমএন আবছার; জাতীয় পার্টির সোলায়মান আলম শেঠ।

(প্রতিবেদনটি তৈরিতে সহায়তা করেছেন কুমিল্লা ব্যুরোর তাবারক উল্যাহ কায়েস, কক্সবাজার প্রতিনিধি জসিম উদ্দিন, রাঙামাটি প্রতিনিধি সুশীল চাকমা, বান্দরবান প্রতিনিধি আলাউদ্দিন শাহরিয়ার, খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি সমীর মল্লিক, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার স্টাফ রিপোর্টার সাব্বির আহমেদ সুবীর, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি আবুল কালাম আজাদ, ফেনী প্রতিনিধি যতন মজুমদার, চাঁদপুর প্রতিনিধি মির্জা জাকির, নোয়াখালী প্রতিনিধি মনিরুজ্জামান চৌধুরী।)

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category