• বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:০০ অপরাহ্ন
/ সম্পাদকীয়
-রিন্টু আনোয়ার চলতি বছরটি বিশ্বময় নির্বাচনের বছর। ভৌগলিক মাপে তা প্রায় বিশ্বের অর্ধেক জুড়ে। শুরুটা হয়েছে ৭ জানুয়ারিতে ১৭ কোটি জনগণের বাংলাদেশ দিয়ে। এর এক মাস পর ৮ ফেব্রুয়ারি হলো বিস্তারিত...
-রিন্টু আনোয়ার ভালো তথা সম্ভাবনাময় জিনিসও আমাদের দেশে বরবাদ হয়ে যায় প্রতারণা, জালিয়াতি, ঠকবাজির কারণে। তা জনপ্রিয়তার বদলে হয়ে যায় জনধিকৃত। উদাহরণের জায়গায় সেখানে উল্লেখ করতে হয় ই-কমার্সের কথা। ই-কমার্সের
-রিন্টু আনোয়ার গুণমান-প্রকৃতি-বৈশিষ্ট্য-ধরন বা মডেল ইত্যাদি মিলিয়ে বাংলাদেশের এবারের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনটি একবারেই আলাদা। দেশের ইতিহাসের গত ১১টি জাতীয় সংসদ নির্বাচনের একটির সঙ্গেও এবারেরটির তুলনা চলে না।  বিশ্বব্যাপী কূটনীতির
-রিন্টু আনোয়ার নির্বাচনের তেতো মাঠে বাড়তি গরম দিয়ে বিতরণের পর ফেরত নেয়া হয়েছে তৃতীয় শ্রেণির ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষার বই। ঘটনা প্রথম ধরা পড়ে সাতক্ষীরায়। ঠাকুরগাঁওসহ আরো কয়েক জায়গায়ও তা
-রিন্টু আনোয়ার কেউ আমল দিক, না দিক; বিশ্বাস করুক, না করুক- বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো- বিবিএসের বিভিন্ন বিষয়ে দেয়া জরিপ গুলোতে তথ্য থাকছে প্রচুর। সেগুলোর ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ যার যার বিষয়। বিবিএসের করা
-রিন্টু আনোয়ার কষ্ট কেবলই বাড়বাড়ন্ত গরিব ও মধ্যবিত্তদের। মধ্যবিত্তকে নিম্মবিত্তের গল্প শুনিয়ে স্বান্তনা সবাই-ই দিতে পারে। মধ্যবিত্তও তাদের করুণ অবস্থা শুনে দম ধরে যায়। আবার কে গরিব, কে নিম্নবিত্ত-মধ্যবিত্ত সেই
– রিন্টু আনোয়ার হালকা-মাঝারি-ভারি কতো বিষয় নিয়েই কথা হয়। অনাকাঙ্খিত-অবান্তর বিষয়াদি নিয়েও আলোচনা-সমালোচনাও জমে। অথচ খাদ্য নিয়ে আমরা কোন ভবিষ্যতের দিকে যাচ্ছি, তা এখন পর্যন্ত ভাবনায়ও আসছে না অনেকের। ওই
-রিন্টু আনোয়ার ঋণ করে ঘি খাওয়ার প্রবাদটি দেশে খুব পুরনো। এটি এসেছে জড়বাদী চার্বাক দর্শন থেকে। সেখানে বলা আছে-‘ঋণং কৃত্বা ঘৃতং পিবেৎ, যাবৎ জীবেৎ সুখং জীবেৎ’। যার অর্থ, ঋণ করে