• শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:৩৭ পূর্বাহ্ন

চিকিৎসা হচ্ছে না মেয়ের বাবার রক্ত বিক্রি করেও

Reporter Name / ৫১ Time View
Update : শনিবার, ১৯ আগস্ট, ২০২৩

নেত্রকোনার পূর্বধলায় বিরল চর্মরোগ ইকথায়োসিসে আক্রান্ত হয়েছে স্কুলছাত্রী আশামনি। সে উপজেলার আগিয়া ইউনিয়নের মধুনাল গ্রামের রিকশাচালক আউলাদ হোসেনের মেয়ে ও মধুনাল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী।

সরেজমিন দেখা গেছে, রাস্তার পিচ ঢেলে দেওয়ার মতো আশামনির পুরো শরীরজুড়ে চামড়ার ওপর বিশেষ শক্ত আবরণ তৈরি হয়েছে। এ আবরণের কারণে চুলকানিসহ অসহ্য যন্ত্রণা সইতে হচ্ছে তাকে।

মা করুনা আক্তার বলেন, জন্মের ১৫ দিন পরই আশামনির পুরো শরীরই লালচে হয়ে যায়। পরে শরীরের চামড়া উঠে গিয়ে আবার লালচে হয়, এরপর আবার চামড়া উঠে যায়। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই চামড়ার আবরণের ধরন পরিবর্তন হতে থাকে। শরীরজুড়ে পোড়া চামড়ার মতো মোটা হয়ে আছে।

বাবা আউলাদ হোসেন বলেন, আশামনিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ বিভিন্ন জায়গায় চিকিৎসা করিয়েছি। কিন্তু কোনো উন্নতি হচ্ছে না। কয়দিন পরপর তাকে রক্ত দিতে হয়। আমি নিজে অনেকবার রক্ত দিয়েছি। চিকিৎসার জন্য টাকা জোগাড় করতে গিয়ে নিজের রক্তও বিক্রি করেছি। কিন্তু এখন আর পারছি না। দেশের বাইরে (ভারত) নিতে পারলে হয়তো সে ভালো হতো। তবে এতে অনেক টাকার প্রয়োজন। তাই মেয়ের চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তবানদের দিকে চেয়ে আছেন বাবা আউলাদ হোসেন।

ইউএনও শেখ জাহিদ হাসান প্রিন্স বলেন, বিষয়টি খোঁজ নিয়ে তার চিকিৎসার ব্যবস্থা নিতে চেষ্টা করব।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category